WARNING: 2nd time not enter any data to that devise.

 

বিভিন্নভাবে হারিয়ে যাওয়া ডাটা গুলোকে পুনরুদ্ধার করা সম্ভব, এটি নির্ভর করে আপনার ডাটা গুলো কীভাবে হারিয়েছিল তার উপরে। নিচে আমি কিছু কমন ডাটা লস ফ্যাক্টর গুলো নিয়ে আলোচনা করার চেষ্টা করেছি, আপনার আরো কোন ফ্যাক্টর জানা থাকলে নিচে কমেন্ট করে আমাদের জানাতে পারেন।

ফাইল ডিলিট

 

মজার এবং ভালো ব্যাপার হলো, আপনি যখন কোন ফাইল ড্রাইভ থেকে ডিলিট করে দেন সেটি তখনও আপনার ড্রাইভে থেকেই যায়, এবং ততোক্ষণ পর্যন্ত থাকে যতক্ষণ না আরেকটি ফাইল এসে সেটির উপর প্রতিস্থাপিত না হয়। অর্থাৎ যদি আপনি ভুলবশত ডিলিট করা ফাইলটি পুনরুদ্ধার করতে দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহন করেন তবে আপনার ফাইলটি ফিরে পাবার সুযোগ অনেক বেড়ে যায়। ডিলিট হওয়া ফাইল গুলো পুনরুদ্ধার করার ক্ষেত্রে আপনি কোন ভালো ডাটা রিকভারি সফটওয়্যার ব্যবহার করতে পারেন। গুগল করলে এমন বহুত সফটওয়্যার সম্পর্কে আপনি জানতে পারবেন। এদের কোন গুলো ফ্রী আবার কোন গুলো টাকা দিয়ে কিনতে হবে। এই সফটওয়্যার গুলো অনেক জটিল অ্যালগোরিদম ব্যবহার করে ড্রাইভে পড়ে থাকা পুরাতন ডাটা গুলো খোঁজার চেষ্টা করে এবং ডিলিট হওয়া ফাইল গুলোর ফিজিক্যাল লোকেশন অনুমান করে। যদি সফটওয়্যার সঠিক লোকেশন অনুমান করতে সক্ষম হয়, তবে নিঃসন্দেহে আপনি ফাইল ফিরে পেয়ে যাবেন। আর যদি অনুমান না করতে পারে, তবে আপনার ভাগ্য খারাপ!

যাই হোক, ফাইল ডিলিট হয়ে যাওয়ার পরে আপনার কম্পিউটারের সাথে যেকোনো কিছু কার্যকলাপ আপনার ডাটাকে চিরতরে হারিয়ে ফেলার জন্য দায়ী হতে পারে। কেনোনা এতে নতুন ফাইল ওভাররাইট হওয়ার সুযোগ থাকে। এমনকি ইন্টারনেট ব্রাউজিং করলেও আপনার পুরাতন বা হারিয়ে যাওয়া ক্যাশ ফাইল বা কুকিজ গুলো ওভাররাইট হয়ে যেতে পারে, ফলে আর সেগুলো ফিরে পাবেন না। ফাইল রিকভারি সফটওয়্যার গুলো শুধু সেই ফাইল গুলোকেই পুনরুদ্ধার করতে পারে যা ওভাররাইট হয়নি।

আবার ডিলিট হওয়া ফাইল কতটা দ্রুত ফিরে পাবেন বা ফিরে পাবার সুযোগ কতটুকু এটা অনেক সময় নির্ভর করে আপনার ফাইল সিস্টেমের উপরে। উদাহরণ স্বরূপ; উইন্ডোজ এনটিএফএস (NTFS) ফাইল সিস্টেম কোন ফাইল ডিলিট হওয়ার পরেও সেই ফাইলটির বিবরণী তথ্য সংরক্ষিত রাখে, ফলে যেকোনো রিকভারি সফটওয়্যারের কাছে ফাইলটি খুঁজে পাওয়া অনেক সুবিধা জনক হয়ে যায়। অন্যান্য ফাইল সিস্টেম যেমন- ইউটিএফ (UTF) বা এফএটি (FAT) কোন ফাইল ডিলিট হওয়ার সাথে সাথে তার বিবরণী তথ্য গুলোকেও ধ্বংস করে দেয়, ফলে রিকভারি সফটওয়্যারের কাছে ফাইলটি খুঁজে পাওয়া অনেক কঠিন হয়ে উঠে।

ফাইল করাপশন
যদি আপনার কম্পিউটারে বারবার ম্যাসেজ আসতে শুরু করে “আপনার হার্ডড্রাইভ করাপ্টেড হয়ে গেছে” তো আপনি জানেন এটি কতো দুঃস্বপ্নের ব্যাপার। তবে চিন্তার কোন কারন নেই—কেনোনা এখনো আপনার ডাটা গুলো পুনরুদ্ধারিত হওয়ার সুযোগ রয়েছে। প্রথমে আপনার হার্ডড্রাইভটি অন্য একটি কম্পিউটারের সাথে লাগানোর প্রয়োজন পড়বে, যদি চেক করে দেখেন যে শুধু ঐ ড্রাইভটির অপারেটিং সিস্টেম করাপ্টেড হয়েছে তবে অনেক সহজেই বাকি ডাটা গুলো কপি করে নিতে পারবেন।

কিন্তু আসল সমস্যা তখন হতে পারে যদি হার্ডড্রাইভের পার্টিশন টেবিল করাপ্টেড হয়ে যায়। তবে লিনাক্স ব্যবহার করে করাপ্টেড পার্টিশন টেবিল ঠিক করা সম্ভব। যদি আপনারা চান তবে এই ব্যাপারে আমি একটি টিউটোরিয়াল বানিয়ে দিতে পারি। যদি আপনি সফলভাবে পার্টিশন টেবিল ঠিক করতে পারেন, তবে সহজেই করাপ্টেড ডাটা গুলো ফেরত পেতে পারেন। যদি না পড়েন, তবে এখনো পার্টিশন টেবিল থেকে যথেষ্ট তথ্য উদ্ধার করতে সক্ষম হবেন, যদিও এটি নির্ভর করে করাপ্টেড হওয়ার স্তরের উপর।

এখন যদি রিকভার করা ফাইল গুলো করাপ্টেড হয় তবে ফাইল রিকভারি সফটওয়্যার ব্যবহার করে সেগুলোকে ব্যবহার যোগ্য করা সম্ভব। সফটওয়্যার হার্ডড্রাইভ থেকে ফাইল গুলো খোঁজার সময় সেগুলোর আগের ভার্সন পাওয়ার চেষ্টা করবে, ফলে রিকভার হওয়া ফাইল গুলো ব্যবহার যোগ্য হতে পারে। পার্টিশন টেবিল ঠিক করতে পারলে প্রায় বেশিরভাগ সময়ই সকল ডাটা ফেরত পাওয়া যায়।

ফাইল সিস্টেম ফরম্যাট বা ফাইল ধ্বংস
ফাইল ডিলিট করার মতোই সিস্টেম ফরম্যাটিং এ ফাইলটির বিবরণী তথ্য ধ্বংস করে দেওয়া হয়, কিন্তু ফাইলটি যতক্ষণ না ওভাররাইট হয় তখন সেটি ফিজিক্যালি অবস্থান করে। তবে আগেই বলেছি ডিলিট হওয়া ফাইল অনেকটাই নির্ভর করে এর ফাইল সিস্টেমের উপরে। যেমন ধরুন, এফএটি ফাইল সিস্টেমে কোন বড় ডাটা ডিলিট করে দিলে ড্রাইভের সেই অংশকে সম্পূর্ণ জিরো দ্বারা ওভাররাইট করে দেয়, ফলে আগের ফাইলটি ফিরে পাওয়া অনেক মুশকিল হয়ে দাঁড়ায়। কিন্তু এনটিএফএস ফাইল সিস্টেম কোন ফাইল রিকভার করা প্রচণ্ড সহজ হয়ে থাকে।

যদি কোন ফাইল ধ্বংস হয়ে যায় তবে সেটি ফিরে পাবার ক্ষেত্রে নির্ভর করে ফাইলটি ঠিক কতটা ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে তার উপরে। যদি ফাইল রিকভারি সফটওয়্যার ক্ষতিগ্রস্থ ফাইলটি থেকে যথেষ্ট তথ্য উদ্ধার করতে সক্ষম হয় তবে ধ্বংস হওয়া ফাইলটি ব্যাবহারের যোগ্য হতে পারে। তারপরও ফাইল রিকভারি সফটওয়্যার আগের ফাইলটি অর্থাৎ ধ্বংস হওয়ার আগের ভার্সনটি খোঁজার চেষ্টা করে, যদি খুঁজে পায়, তবে সত্যি আপনার ভাগ্য খুব ভালো।